বিডি প্রাইম ডেইলি
সর্বশেষ খবর

অবরোধের আগে রাজধানীতে আবারও পুড়ল বাস


বিএনপির অবরোধের আগের রাতে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে একটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় একজন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা এলাকায় বাসটিতে আগুন দেওয়া হয়।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে তারা বাসে আগুনের খবর পায়। এরপর পোস্তগোলা ফায়ার স্টেশনের দুইটি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজ করছে।

আগামীকাল বুধবার থেকে আবারও সারা দেশে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ ডেকেছে বিএনপি। গত ২৯ অক্টোবর থেকে সরকারের পদত্যাগের দাবিতে দলটির প্রায় ধারাবাহিক হরতাল–অবরোধের মধ্যে প্রায় দুই শ যানবাহন ও স্থাপনায় আগুন দেওয়া হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস বলছে, গত ২৮ অক্টোবর থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত ২৪ দিনে মোট ১৯৭টি যানবাহন ও স্থাপনায় অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া যানবাহনের মধ্যে অধিকাংশই বাস। গত ২৪ দিনে প্রতিদিন গড়ে ৭টি করে যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিদিন গড়ে পুড়েছে ৫টি করে বাস।

গত ২৮ অক্টোবর ২৯টি, ২৯ অক্টোবর ১৯টি, ৩১ অক্টোবর ১২টি, ১ নভেম্বর ১৪টি, ২ নভেম্বর ৭টি, ৪ নভেম্বর ৬টি, ৫ নভেম্বর ১৩টি, ৬ নভেম্বর ১৩টি, ৭ নভেম্বর ২টি, ৮ নভেম্বর ৯টি, ৯ নভেম্বর ৭টি, ১০ নভেম্বর ২টি, ১১ নভেম্বর ৭টি, ১২ নভেম্বর ৭টি, ১৩ নভেম্বর ৮টি, ১৪ নভেম্বর ৪টি, ১৫ নভেম্বর ৬টি, ১৬ নভেম্বর ৭টি, ১৮ নভেম্বর ৬টি, ১৯ নভেম্বর ১৩টি এবং ২০ নভেম্বর ৬টি অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

২৮ অক্টোবর থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে ১৮৫টি যানবাহন ও ১৫টি স্থাপনা পুড়ে যায়। যানবাহনের মধ্যে মোট বাস ১১৮টি, ট্রাক ২৬টি, কাভার্ড ভ্যান ১৩টি, মোটরসাইকেল ৮টি, প্রাইভেটকার ২টি, মাইক্রোবাস ৩টি, পিকআপ ৩টি, সিএনজি ৩টি, ট্রেন ২টি, নছিমন ১টি, লেগুনা ৩টি, ফায়ার সার্ভিসের পানিবাহী গাড়ি ১টি, পুলিশের গাড়ি ১টি, অ্যাম্বুলেন্স ১টি।

স্থাপনাগুলোর মধ্যে– বিএনপি অফিস ৫টি, আওয়ামী লীগ অফিস ১টি, পুলিশ বক্স ১টি, কাউন্সিলর অফিস ১টি, বিদ্যুৎ অফিস ২টি, বাস কাউন্টার ১টি, শোরুম ২টি আরও ২টি স্থাপনা পুড়ে যায়।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ঢাকা সিটিতে ৯৫টি, ঢাকা বিভাগে ৩৭টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ২২টি, রাজশাহী বিভাগে ২৪টি, বরিশাল বিভাগে ৭টি, রংপুর বিভাগে ৭টি, খুলনা বিভাগে ২টি, ময়মনসিংহ বিভাগে ২টি, সিলেট বিভাগে ১টি অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

এছাড়া জেলাভিত্তিক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গাজীপুর জেলায় সবচেয়ে বেশি আগুনের ঘটনা ঘটেছে। গাজীপুরে ১৬টি, চট্টগ্রামে ১৪টি, বগুড়া ১৩টি, নারায়ণগঞ্জ ৬টি, মানিকগঞ্জ ৪টি, ফরিদপুর ৪টি, লালমনিরহাট ৪টি, নাটোর ৪টি করে আগুনের সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস।

উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বগুড়া সদর উপজেলায় আগুনের ঘটনা সবচেয়ে বেশি। বগুড়া সদরে ৮টি, গাজীপুর সদরে ৬টি, নারায়ণগঞ্জ সদরে ৪টি, ফেনী সদরে ৩টি, কালিয়াকৈর উপজেলায় ৪টি করে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিসের তথ্য অনুযায়ী, ২৪ দিনের এসব অগ্নিসংযোগের ঘটনায় সারা দেশে মোট ৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্য ২ জন ফায়ার সার্ভিস কর্মী, বাকি ৩ জন সাধারণ নাগরিক। তবে নিহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে।

Related posts

নৌকার মনোনয়ন পেলেন সাকিব – বাংলা খবর

ইমতিয়াজ আলি

এবার অবরোধ-হরতাল একসাথে দিলো বিএনপি

ইমতিয়াজ আলি

শিখ নেতার হত্যার বিষয়টি অবশ্যই জাতিসংঘে তুলবে কানাডা

ইমতিয়াজ আলি