Home বিনোদন শেখ হাসিনা ফিরেছিলেন বলেই বাংলাদেশ বদলে গেছে: কাদের

শেখ হাসিনা ফিরেছিলেন বলেই বাংলাদেশ বদলে গেছে: কাদের

3
0

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে উন্নয়ন, অর্জন, আধুনিকতায় বাংলাদেশ ‘বদলে গেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার তেজগাঁওয়ের রহমতে আলম ইসলাম মিশন এতিমখানায় সুবিধাবঞ্চিতদের মাঝে সুষম খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

১৭ মে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে দলটির ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “১৫ বছর ধরে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের ক্ষমতার রাজনীতিতে অধিষ্ঠিত আছেন। এই ১৫ বছর আগে আর পরে বাংলাদেশের আজকে কী পার্থক্য দেখতে পান?

“ওই বাংলাদেশের সাথে এই বাংলাদেশের কোনো মিল নেই। ১৫ বছর আগের আর আজকের ঢাকা শহর দিন রাত পার্থক্য। উন্নয়নে, অর্জনে আধুনিকতায় বদলে গেছে। গ্রাম হয়েছে শহর। বাংলাদেশের রূপান্তরের রূপকার এক কথায় শেখ হাসিনা।”

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকে হত্যা করা হয়। সেদিন বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান তার দুই মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।


ছয় বছর নির্বাসিত জীবন কাটিয়ে ১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফেরেন শেখ হাসিনা। এই দিনটি তার ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ হিসেবে পালন করে আওয়ামী লীগ।


ওবায়দুল কাদের বলেন, “১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারের হত্যার পর গণতন্ত্র, স্বাধীনতার আদর্শ, ঐতিহাসিক ৭ মার্চ রণধ্বনি সবই নির্বাসনে চলে গিয়েছিল। শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন আমাদের গণতন্ত্র, স্বাধীনতার আদর্শ, মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধের, মুক্তিযুদ্ধের রণধ্বনির স্বদেশ প্রত্যাবর্তন।


“তিনি এসেছিলেন বলেই গণতন্ত্র শৃঙ্খলমুক্ত হয়েছে, ৭ মার্চ স্বাধীনতার ডাকের ঐতিহাসিক দিনটি পালন করি।”

শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এসেছিলেন বলেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে। তিনি ফিরে এসেছিলেন বলেই গণতন্ত্র শৃঙ্খলমুক্ত হয়েছে। সংসদে আইন প্রণয়নের মাধ্যমে স্বাধীন নির্বাচন ব্যবস্থা ও সুষ্ঠু পরিবেশ আমরা করতে পেরেছি। স্বপ্নের মেট্রোরেল হয়েছে। নিজের টাকায় পদ্মা সেতু করতে পেরেছি।”

যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের সম্পর্ক ‘আগের অবস্থানে’ আছে– বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “মির্জা ফখরুল কি করে জানলেন যুক্তরাষ্ট্র তার আগের অবস্থানে রয়েছে? মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লুর বক্তব্য স্পষ্ট। তিনি যে কথা বলেছেন, এরপর ফখরুল সাহেবের যে বক্তব্য, এ বক্তব্যের কোনো মূল্য নেই।”


আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক উপ কমিটির সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এতিমখানার শিক্ষার্থীসহ মহানগরের নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।