Home বিনোদন বাংলাদেশকে নিজের চোখ দিয়ে দেখে যুক্তরাষ্ট্র

বাংলাদেশকে নিজের চোখ দিয়ে দেখে যুক্তরাষ্ট্র

3
0

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দক্ষিণ এশিয়াসহ সারা বিশ্বে চীনের প্রভাব বাড়ছে। মালদ্বীপের সাম্প্রতিক নির্বাচনে এমন ঘটনারই প্রতিফলন ঘটেছে। অঞ্চলে ও পথের উদ্যোগের (বিআরআই) সমঝোতা স্মারক সইয়ের পর চীন এখন বাংলাদেশের সঙ্গে বৈশ্বিক উন্নয়ন উদ্যোগ (জিডিআই) এবং বৈশ্বিক নিরাপত্তা উদ্যোগ (জিএসআই) সই করতে আগ্রহী। যুক্তরাষ্ট্র এই অঞ্চলে ক্রমবর্ধমান চীনা প্রভাবকে কীভাবে মূল্যায়ন করে?

ডোনাল্ড লু: আমরা সব সময় আমাদের সহযোগীদের তারা কাকে পছন্দ করবে, সে বিষয়ে কিছু বলি না। আমরা চীনসহ সব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ইতিবাচক সম্পর্ক রাখার কথা বলি। আমরা স্বাভাবিক সম্পর্কের কথাই বলি। সে সম্পর্কের কথা বলি না, যেটা চাপ কিংবা অস্বাভাবিক ঋণের শর্তে গড়া। সেই দেশগুলোতে চীনের সুসম্পর্ক বা স্বাভাবিক সম্পর্ক আছে, যেখানে অন্য দেশগুলো প্রতিযোগিতা করতে পারে।

আমি যখন কিরগিজস্তানের রাষ্ট্রদূত ছিলাম, তখন দেখেছি চীন ছাড়া অন্য কোনো দেশ সেখানে বিনিয়োগ করতে প্রতিযোগিতায় নামত না। শুধু চীন সেখানে বিনিয়োগ করেছে। তারা সেখানে বেশ কিছু বাজে প্রকল্প নিয়েছে। বিপুল বিনিয়োগে করা প্রকল্পগুলো কিরগিজ জনগণের জন্য সুফল বয়ে আনেনি।

অপর দিকে কাজাখস্তানে পশ্চিমা দেশ, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র—সবাই প্রতিযোগিতা করছে। নেদারল্যান্ডস সেখানকার শীর্ষ বিনিয়োগকারী দেশ, যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান দ্বিতীয়। চীনের অবস্থান অষ্টম। তারা সেখানে স্বাভাবিকভাবে প্রতিযোগিতা করছে। তাদের প্রকল্পে কাজাখস্তানের জনগণ কাজ করছে, সেখানে চীনের কোনো শ্রমিক নেই।

চীনের সবাই বলেছে, বাংলাদেশে আমরা ভালো সহযোগী হিসেবে কাজ করতে পারি। এ জন্য আমরা বিনিয়োগ, প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম, আইডিয়া, শিক্ষার মতো ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা করার প্রস্তাব দিয়েছি।