Home বিনোদন নাজমুলের বিশ্বাস, দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলবে বাংলাদেশ

নাজমুলের বিশ্বাস, দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলবে বাংলাদেশ

2
0

কাজটা খুব একটা কঠিন নয়। আবার কঠিনও। বিশ্বকাপে ডি গ্রুপ থেকে বাংলাদেশকে নিশ্চিত করতে হবে দ্বিতীয় রাউন্ড। নয়তো প্রথম রাউন্ডেই বিদায়। ডি গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গী শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা, নেদারল্যান্ডস ও নেপাল। শুরুর দুই প্রতিপক্ষকে নিয়ে বাংলাদেশের যত ভয়। তবে আইসিসির সহযোগী দুই দেশ নেদারল্যান্ডস ও নেপাল যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী দল। তাই তাদেরও হালকাভাবে নেওয়ার কোনও কারণ নেই। 

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বিশ্বাস, যে দল গড়েছে বাংলাদেশ, যে খেলোয়াড় নিয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপের মিশনে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা সম্ভব। 





বুধবার (১৫ মে) মিরপুরে বিসিবি সভাপতি বিশ্বকাপ দলের সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেন। এরপর ক্রিকেটারদের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ করেন। আলাদা আলাদা করে প্রায় প্রত্যেক ক্রিকেটারের সঙ্গেই কথা বলেছেন। নিজেদের দল এবং ক্রিকেটারদের নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী বোর্ড প্রধান, ‘তাদের জন্য শুভ কামনা। একটা জিনিস আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি যারা যাচ্ছে, যে সমস্ত খেলোয়াড়রা নির্বাচিত হয়েছে তাদের প্রত্যেকেরই সামর্থ্য আছে ভালো খেলার। টিম হিসেবে যদি পারফর্ম করতে পারে তাহলে এই দলটা যে কোনো দলের বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে সক্ষম।’ 

বড় সাফল্যের জন্য নাজমুল হাসান স্টেপ বাই স্টেপ আগাতে চান, ‘এটা (নিজেদের লক্ষ্য) স্টেপ বাই স্টেপ চিন্তা করা উচিৎ। প্রথম চিন্তা করা উচিৎ আমাদের দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়া। দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার আগে আমাদের প্রথম যে চারটি ম্যাচ আছে, এর মধ্যে প্রথম দুটি ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা আশা করছি এই চারটি ম্যাচে সবগুলোতে ভালো খেলে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাব। দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার পর নিশ্চিতভাবেই তখন অন্য চিন্তা।’

বাংলাদেশের ক্রিকেট যে অবস্থায় থাকুক, সমর্থকরা সব সময়ই পাশে থাকে। দুঃসময়ে পাশে থেকে সাহস বাড়ায়। সাফল্যে আনন্দ দ্বিগুণ করে। এবারের বিশ্বকাপেও তাদের থেকে অকুণ্ঠ সমর্থন চাইলেন নাজমুল হাসান, ‘আজ বাংলাদেশ ক্রিকেট যেখানে এসেছে নিশ্চিতভাবেই প্রধান কারণ হচ্ছে সাপোর্টার। সাপোর্টারদের বিরাট ভূমিকা আছে। আমরা যখনই দেশে খেলছি কিংবা দেশের বাইরে খেলতে যাচ্ছি আমরা দেখছি প্রচুর সাপোর্টার। অনেক দূর দূরান্ত থেকে সাপোর্টাররা আসে। বিশেষ করে বিশ্বকাপ যখন হয়।’

‘যুক্তরাষ্ট্রে প্রচুর বাংলাদেশি থাকে। আমি উত্তাপ টের পাচ্ছি কারণ অনেকেই আগ্রহ দেখাচ্ছে টিকিটের। কোথায় পাওয়া যাবে? এতো চাহিদা আসছে…আশা করবো তারা প্রত্যেকে টিকিট পেয়ে মাঠে থাকবেন এবং আমাদের দলকে সাপোর্ট করবেন’– যোগ করেন তিনি।