Home বাংলাদেশ মার্চে রপ্তানি আয় ৫৬ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে

মার্চে রপ্তানি আয় ৫৬ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে

5
0


দেশে সদ্য সমাপ্ত মার্চ মাসে পণ্য রপ্তানি করে আয় হয়েছে ৫১০ কোটি ২৫ লাখ মার্কিন ডলার। দেশীয় মুদ্রায় (প্রতি ডলার ১১০ টাকা ধ‌রে) যার পরিমাণ ৫৬ হাজার ১২৮ কোটি টাকা। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে রপ্তানি হয়েছিল ৫১৮ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। মাসের ব্যবধানে রপ্তানি আয় বেড়েছে।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) প্রকাশিত পরিসংখ্যানে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে (জুলাই-মার্চ) ৪ হাজার ৩৫৫ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪ দশমিক ৩৯ শতাংশ বেশি। গত ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৫ হাজার ৫৫৬ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছিল বাংলাদেশ। ওই সময় প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ। চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ৬ হাজার ২০০ কোটি ডলার। গত নয় মাসে রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি হলেও লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৮৬ শতাংশ পিছিয়ে রয়েছে।

ইপিবির প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে দেশের তৈরি পোশাক খাতের রপ্তানি বাড়লেও অন্যান্য বড় খাতগুলোর রপ্তানি করেছে। এর মধ্যে রয়েছে হিমায়িত খাদ্য, পাট ও পাটজাত পণ্য, চমড়া ও চামড়াজাত পণ্য, হোম টেক্সটাইল, প্রকৌশল পণ্য ইত্যাদি।

তথ্যমতে, দেশের তৈরি পোশাক প্রথম ৯ মাসে তিন হাজার ৭২০ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ বেশি। তবে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৪ দশমকি ৬২ শতাংশ কম। আলোচ্য সময়ে নিট পোশাকের রপ্তানি ৯ দশমিক ৭৯ শতাংশ এবং ওভেন পোশাক দশমিক ৪৭ শতাংশ বেড়েছে।

তৈরি পোশাকের বাইরে গত ৯ মাসে রপ্তানি তালিকার শীর্ষে থাকা পণ্যে রপ্তানি কমেছে। আলোচ্য সময়ে পাট ও পাটপণ্যের রপ্তানি আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় কমেছে ৫ দশমিক ৬ শতাংশ। চামড়া ও চামড়া পণ্যের রপ্তানি আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় কম হয়েছে ১৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এছাড়া হোম টেক্সটাইলের রপ্তানি কমেছে প্রায় ২৬ শতাংশ। তবে কৃষি পণ্যের রপ্তানি চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে ৫ দশমিক ৬ শতাংশ এবং প্লাস্টিক পণ্যের রপ্তানি ১৮ দশমিক ১৬ শতাংশ বেড়েছে।





Source link