Home বাংলাদেশ বিএনপির প্রতি শাজাহান খানের হুঁশিয়ারি

বিএনপির প্রতি শাজাহান খানের হুঁশিয়ারি

9
0
শাহজাহান খান
শাহজাহান খান

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, বিএনপি সমাবেশের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করলে শ্রমিকরা বসে থাকবে না। সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে শাহজাহান খান বলেন, বিএনপি চেয়েছিল শ্রমিকদের রক্ত দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি তৈরি করতে। আন্দোলনের নামে সড়কে থাকা বাসে আগুন দিয়ে তারা শ্রমিকদেরও পুড়িয়ে মেরেছে। ক্ষমতায় থেকে লুটপাট ছাড়া আর কোনো কিছুই করতে পারেনি। এখন আবার দেশের মধ্যে ত্রাস সৃষ্টি করে ক্ষমতায় যেতে চাইছে। কিন্তু দেশের মানুষ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের জোয়ারে বিএনপি ভেসে গেছে। তারা আগুন সন্ত্রাস করে আর ক্ষমতায় ফিরতে পারবে না। আন্দোলনের নামে তারা অরাজকতা সৃষ্টি করলে সমুচিত জবাব দেয়া হবে। তাদের প্রতিহত করতে খেটে খাওয়া শ্রমিকরাই অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। এ সময় পরিবহন শ্রমিকরা দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলেন।
শ্রমিকরা জানান, তাদের নায্য অধিকার ও চাঁদার অর্থসহ সব সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। এ নিয়ে দফায় দফায় চলে হট্টোগোল। পরে শাজাহান খান শ্রমিকদের শান্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, অনেকে বলেন দুর্ঘটনা বেড়েছে। আমি বলি, দুর্ঘটনা বাড়েনি বরং কমেছে। উনারা বাড়ার হিসাব দেন। কিন্তু ১০ বছর আগে যে গাড়ির সংখ্যা ছিল, আজকে কি তা আছে? তাহলে বিষয়টা কি? এখন যত রাস্তা তা কি আগে ছিল? তাহলে ওই হিসাব যদি ধরেন তাহলে জনসংখ্যা বেড়েছে, গাড়ি বেড়েছে, রাস্তা বেড়েছে। গাড়ি আর জনসংখ্যার হিসাব করলে দেখবেন দুর্ঘটনা আগের চেয়ে কমেছে।

তিনি বলেন, রাস্তার অধিকাংশ গতিরোধকে (স্পিড ব্রেকার) রঙ নেই, চুন নেই। ওটা তো স্পিড ব্রেকার নয়, স্প্রিং বেকার। উঠলেই জাম্প করে। এছাড়া রাস্তায় মার্জিন থাকে না। এরকম ত্রুটি সড়ক থেকে দূর করতে হবে। এছাড়া দুর্ঘটনা কমাতে সড়ক নির্মাণে প্রকৌশলগত ত্রুটি দূর করতে হবে।

শাজাহান খান বলেন, আমরা একটি কথা বার বার বলি, বড় বড় স্পর্শকাতর কিছু দুর্ঘটনা আছে, সেই দুর্ঘটনাগুলো শুধুমাত্র পুলিশ দিয়ে তদন্ত করলে হবে না। পুলিশের তদন্তে সমস্ত দায়ভার চালকদের ওপর বর্তায়। কি বলে? বেপরোয়া গাড়ি চালিয়েছে সেই কারণে। আরেকটি হলো চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়নি, আর না হয় চালকদের ওপর দোষ চাপিয়ে দেয়। তাই শুধুমাত্র পুলিশ দিয়ে এ সমস্ত দুর্ঘটনার তদন্ত হবে না।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর প্রতিষ্ঠাতা চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন প্রসঙ্গে শাজাহান খান বলেন, একজন লোক (ইলিয়াস কাঞ্চন) আছেন, নিরাপদ সড়ক চান। ভালো, আমরাও তো চাই। তিনি একবার বললেন বিএ পাস শ্রমিক লাগবে। বিএ পাস ছাড়া ড্রাইভার হতে পারবে না। আবার বললেন, যদি কেউ দুর্ঘটনা ঘটায়, তাহলে প্রকাশ্যে পাঁচটি বেত্রাঘাত করতে হবে। আমরা কি বর্বর যুগে আছি? আবার কি বললেন, ১৪ বছরের নিচে কোনো সাজা দেয়া যাবে না। তিনি এই বঙ্গে আছেন কি না আমি জানি না। বাংলাদেশের মানুষের মানসিকতা, বাংলাদেশের আবহাওয়া, আমাদের অর্থনীতির অবস্থা, সামাজিক অবস্থা মনে হয় তিনি জানেন না। এজন্য এই সমস্ত কথাবার্তা বলেন।

রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলীর সভাপতিত্বে সাধারণ সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী। এতে অন্যদের মধ্যে রাজশাহীর মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা এতে বক্তব্য রাখেন।