Home বাংলাদেশ কনকনে শীতে রাজশাহী কলেজ মাঠে চলছে গণিত উৎসব

কনকনে শীতে রাজশাহী কলেজ মাঠে চলছে গণিত উৎসব

4
0

রাজশাহী অঞ্চলের সাড়ে আট শ শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে শুরু হয়েছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক-প্রথম আলো গণিত উৎসব। আজ শুক্রবার সকাল সোয়া ৯টায় রাজশাহী কলেজ মাঠে আঞ্চলিক এই উৎসবের উদ্বোধন করেন কলেজের অধ্যক্ষ মোহা. আবদুল খালেক।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ও প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনায় গণিত উৎসবের আয়োজন করছে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি। রাজশাহীতে দিনব্যাপী এই আয়োজনের সহযোগিতা করছে প্রথম আলো রাজশাহী বন্ধুসভা।

গণিত উৎসবে অংশ নিতে শিক্ষার্থীরা কনকনে শীতের মধ্যে আজ উদ্বোধনের আগেই কলেজ মাঠে উপস্থিত হয়। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আসেন অভিভাবকেরাও। উৎসবে কয়েকটি বইয়ের স্টলও বসেছে। সেখানেও শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের আনাগোনা দেখা গেছে।

সকালে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন ভেন্যু প্রধান ও রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ মোহা. আবদুল খালেক। ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের রাজশাহী শাখা ব্যবস্থাপক ফজলুল কবির বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের পতাকা ও প্রথম আলো রাজশাহী নিজস্ব প্রতিবেদক আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের পতাকা উত্তোলন করেন।

উদ্বোধন শেষে সকাল সোয়া ১০টায় শিক্ষার্থীদের ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিটের পরীক্ষা শুরু হয়। এ জন্য এর আগে তারা সারিবদ্ধ হয়ে কলেজের বিভিন্ন ভবনের পরীক্ষাকক্ষে প্রবেশ করে। সেখানে কয়েকজন শিক্ষার্থী বলে, তারা গণিত উৎসবের জন্য অপেক্ষায় থাকে। গণিতের রহস্য উন্মোচনে তাদের ভালো লাগে। গণিত তাদের কাছে আনন্দের নাম। তারা গণিতের ভয় কাটিয়ে জয় করবে।

রাজশাহী প্রথম আলো বন্ধুসভার উপদেষ্টা ফারুক হোসেনের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী পর্বে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের রাজশাহী শাখা ব্যবস্থাপক ফজলুল কবির বলেন, ‘২০০৫ সাল থেকে আমরা প্রথম আলোর এই গণিত উৎসবের সঙ্গে রয়েছি। সব সময় একটা স্লোগান দিই—যা কিছু ভালো তার সঙ্গে প্রথম আলো। এই মহৎ একটি কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমর গর্বিত। এই আয়োজনের মাধ্যমে সারা বাংলাদেশে বিপুল সাড়া মিলেছে।’

শিক্ষার্থীদের এই ধরনের আয়োজনে আগ্রহ বাড়ছে জানিয়ে ফজলুল কবির বলেন, বিপুল উৎসাহ নিয়ে আজকে এই কনকনে শীতের মধ্যে শিক্ষার্থীরা তাদের অভিভাবকদের নিয়ে চলে এসেছে। এ রকমও শোনা গেছে যে অভিভাবকেরা বলছেন, এত দূর তাঁরা যাবেন না। কিন্তু এই শিক্ষার্থীরা তাঁদের অভিভাবকদের নিয়ে এসেছে। এখন অভিভাবকদের জানার আগেই শিক্ষার্থীরা জেনে যাচ্ছে কোথায় কোন উৎসব হচ্ছে। এটি একটি বিপ্লব। শিক্ষার্থীদের এই আগ্রহ বিশাল ব্যাপার।